ভালোবাসার প্রীতিলতা

প্রীতিলতা চরিত্রে অভিনয় করছেন নুসরাত ইমরোজ তিশা

স্বদেশের স্বাধীনতার জন্য বর্তমান বাংলাদেশের চট্টগ্রামের বিপ্লবীদের যে বিস্ময়কর ও সাহসিকতাপূর্ণ অভ্যুত্থান ঘটেছিল, সেই ইতিহাসকে ধারণ করে নির্মিত হচ্ছে কথাসাহিত্যিক সেলিনা হোসেনের উপন্যাস ‘ভালোবাসা প্রীতিলতা’ অবলম্বনে পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘ভালোবাসা প্রীতিলতা’। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের ২০১৯-২০ অর্থবছরের সরকারি অনুদানে পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ভালোবাসা প্রীতিলতা চলচ্চিত্রটি পরিচালনা করছেন প্রদীপ ঘোষ, প্রযোজনা করছেন রিফাত মোস্তফা। ইতিমধ্যে তৃতীয় লটের শুটিং চলছে চট্টগ্রাম যুব বিদ্রোহের ঐতিহাসিক স্থানসমূহে। গত ২৮ নভেম্বর থেকে শুরু হওয়া শুটিংয়ের স্থান নির্বাচন করা হয়েছে পাহারতলী ইউরোপিয়ান ক্লাব ও পটিয়া উপজেলার ধলঘাট এলাকায়। চলচ্চিত্রের নির্বাহী প্রযোজক রিফাত মোস্তফা বলেন, ‘আমরা চট্টগ্রামের মানুষ হিসেবে এটা আমাদের দায়িত্ব ছিল বহু আগেই এ ধরণের একটি চলচ্চিত্র নির্মাণের উদ্যোগ নেয়া। উপমহাদেশের প্রথম নারী শহীদ প্রীতিলতার জীবন ও সংগ্রাম নিয়ে ছোটবেলা থেকেই আমার বাবা ও মায়ের কাছ থেকে গল্প শুনতে শুনতে বড় হয়েছি। অনেক দেরিতে হলেও পৃথিবীতে এই প্রথম ভালোবাসা বীরকন্যা প্রীতিলতা চলচ্চিত্রটি নির্মাণ কাজ শুরু করেছি। আমি মনে করি চট্টগ্রামের সকল মানুষের এই মহৎ কাজটিতে এগিয়ে আসা উচিত।’ ঐতিহাসিক ঘটনার বিবরণ নিয়ে নির্মিতব্য এই চলচ্চিত্রের প্রীতিলতা চরিত্রে অভিনয়ে অংশ নিচ্ছেন দেশের খ্যাতিমান অভিনয় শিল্পী নুসরাত ইমরোজ তিশা এবং বিপ্লবী রামকৃষ্ণ বিশ্বাস চরিত্রে থাকছেন মনোজ প্রামানিক। প্রীতিলতার বাবা চরিত্রে খ্যাতিমান নাট্যকার ও অভিনেতা মান্নান হীরা। কিশোরী প্রীতিলতা মৃন্ময়ী রূপকথা। সূর্য সেন চরিত্রে কামরুজ্জামান তাপু, কল্পনা দত্ত চরিত্রে ইন্দ্রানী ঘটক, নির্মল সেন চরিত্রে অমিত রঞ্জন দে, মনোরঞ্জন চরিত্রে সুচয় আমিন, ইংরেজ ম্যাজিস্ট্রেট চরিত্রে পাশা মোস্তফা কামাল, ইংরেজ অফিসার চরিত্রে মিজান রহমান, আহমেদ আলী, নাজমুল বাবু, সুধাংশু তালুকদার, বিপ্লবীদের সহায়তাকারী চরিত্রে আরিফুল ইসলাম হাবিব, মনিশ কাকা চরিত্রে পংকজ মজুমদার, পিসি চরিত্রে তামিমা তিথী। চলচ্চিত্রের পরিলাক প্রদীপ ঘোষ বলেন, ‘আমরা ঐতিহাসিক স্থানগুলোতেই আমাদের শুটিং পরিচালনা করছি। যে গ্রাম গুলোতে বিপ্লবীরা ত্রিশের দশকে তাদের লড়াই পরিচালনা করেছেন আমরা সেই সব গ্রাম গুলোতেই শুটিং করছি। ইতিমধ্যে পাহাড়তলীতে অবস্থিত ইউরোপিয়ান ক্লাবে হামলার দৃশ্য ধারণ সম্পন্ন হয়েছে।’ তিনি বলেন, ‘ঐতিহাসিক ধলঘাট যুদ্ধের দৃশ্য ধারণের কাজ চলছে। আমরা চাই নতুন প্রজন্মের কাছে এই চলচ্চিত্র ইতিহাসের দলিল…
মেহের আফরোজ শাওন ও চঞ্চল চৌধুরী

আবারও দ্বৈত গানে চঞ্চল-শাওন, এবার হাসন রাজার গানে

নন্দিত দুই অভিনয় শিল্পী চঞ্চল চৌধুরী ও মেহের আফরোজ শাওন। অভিনয়ের পাশাপাশি সঙ্গীতাঙ্গনেও তাদের জনপ্রিয়তা শীর্ষের কাতারে। এর আগে দু’জন এক সঙ্গে গান গেয়ে এসেছেন আলোচনায়। এবার আবারও দ্বৈত কণ্ঠে গাইলেন দুই তারকা। এবার মরমী কবি হাছন রাজার বিখ্যাত গান ‘নিশা লাগিল রে’ শোনা যাবে তাদের দু’জনের কণ্ঠে। আইপিডিসি আয়োজিত সংগীতা আসর ‘আমাদের গান’-এর দ্বিতীয় সিজনের জন্য গানটি রেকর্ড করা হয়েছে। গানটির সংগীতায়োজন করেছেন পার্থ বড়ূয়া। একই আয়োজনের প্রথম আসরে চঞ্চল চৌধুরী ও মেহের আফরোজ শাওন গেয়েছিলেন ‘সর্বত মঙ্গল রাধে’ গানটি। এটি প্রকাশের পর দারুণ সাড়া ফেলেছিল শ্রোতার মাঝে। সেই সঙ্গে গানটি নিয়ে তর্ক-বিতর্কও হয়েছে অনেক। এবারের গানটি নিয়েও আশাবাদী চঞ্চল চৌধুরী। এ নিয়ে তিনি বলেন, ‘আমি পেশাদার শিল্পী নই, ভালো লাগা থেকেই গান করি। ‘সর্বত মঙ্গল রাধে’ গানের পর ‘নিশা লাগিলোরে’ গানটি গাওয়ার পেছনে একটাই উদ্দেশ্য, আমাদের ঐতিহ্য এবং শিকড়কে নতুন প্রজন্মের কাছে পরিচয় করিয়ে দেওয়া। এর বেশি প্রত্যাশা কখনোই ছিল না। এখন তাই গান শোনার পর শ্রোতা বিচার করবেন কেমন গেয়েছি।’ অপরদিকে, মেহের আফরোজ শাওন বলেন, ‘আইপিডিসি আমাদের লোকগান সর্বস্তরে ছড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করে যাচ্ছে। তারই ধারাবাহিকতায় ‘আমাদের গান’ অনুষ্ঠানের জন্য নতুনভাবে হাছন রাজার ‘নিশা লাগিলোরে’ গানটি রেকর্ড করা হয়েছে। এর আগে শ্রোতারা নারী ও পুরুষ কণ্ঠে বিভিন্ন সময় গানটি শুনেছেন। এবার দ্বৈত কণ্ঠে শোনার সুযোগ পাবেন। পার্থ বড়ূয়ার ভিন্ন আঙ্গিকের সংগীতায়োজনের এই গানটি শ্রোতাকে মুগ্ধ করবে বলেই আমার ধারণা।’ এর আগে, ‘সর্বত মঙ্গল রাঁধে’ গানটি গেয়েছিলেন মেহের আফরোজ শাওন ও চঞ্চল চৌধুরী। এই গানটি তাদের কণ্ঠে দারুণ শ্রোতাপ্রিয় হয়েছিল। আসছে ঈদে ‘আমাদের গান’-এর দ্বিতীয় সিজনের আয়োজন আইপিডিসির নিজস্ব চ্যানেলে দর্শকরা এটি দেখতে পাবেন।
রুক্মিনী মৈত্র

সোশ্যাল মিডিয়ায় অভিনব পোস্ট, দেবের সঙ্গে খুনশুটি

রুক্মিনী মৈত্র৷ নিজের স্টাইল স্টেটমেন্ট, সোশ্যাল মিডিয়ায় অভিনব পোস্ট, দেবের সঙ্গে খুনশুটি৷ এই ধরণের নানা কারণের জন্যই শিরোনামে থাকেন অভিনেত্রী রুক্মিনী৷ তাঁর পজিটিভিটির কারণেই ভক্তরা তাঁকে এত ভালোবাসেন৷ হঠাৎ তাহলে এই নেগেটিভি পোস্ট কীসের? না! অন্য কোনও অভিনেতা-অভিনেত্রী সম্পর্কে নেতিবাচক মন্তব্য তিনি করেননি৷ তেমন মানুষও তিনি নন৷ একদম অন্য বিষয়, বিনোদন জগতের একেবারে বাইরে গিয়ে নিজের অনুভূতি প্রকাশ করেছেন নায়িকা৷ পৃথবীর ধ্বংশ হয়ে যাওয়ার ভয় প্রকাশ করেছেন রুক্মিনী৷ সম্প্রতি নিজের ট্যুইটার হ্যান্ডেলে একটি ছবি পোস্ট করে লিখেছেন, “কেন এরম মনে হচ্ছে যে পৃথিবী ধীরে ধীরে ধ্বংশের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে৷ আমরা পৃথিবীর সেই কলিযুগে এসে পৌঁছে গিয়েছে৷ সবকিছু শেষ হয়ে যাওয়ার ইঙ্গিত করছে পরিবেশ৷ বজ্রবিদ্যুৎ, প্রাণঘাতী ঝড়, ধুলোর ঝড়, তুষারঝড়, বন্যা… এই সব কিছু একের পর এক ঘটে চলেছে গোটা পৃথিবীজুড়ে৷ তাহলে কী সত্যি পৃথিবী শেষ হয়ে যেতে চলেছে৷ এই প্রত্যেক প্রাকৃতিক দুর্যোগ কী ধ্বংশেরই সূত্রপাত? ওপরওয়ালা কী আমাদের ওয়াকিবহল করছে? তোমাদের কী মনে হয়? রুক্মিনীর লেখা পড়েই তাঁর ভয় স্পষ্ট প্রকাশ পাচ্ছে৷ বছর কয়েক ধরে হয়ে আসা প্রাকৃতিক দুর্যোগ যে রুক্মিনীর মনে ভালই দাগ কেটেছে তার প্রমাণ এই পোস্ট৷ যে ছবিটি তিনি শেয়ার করেছেন সেটায় দেখা যাচ্ছে টোকিওর আকাশজুড়ে বজ্রবিদ্যুৎ হচ্ছে৷ ছবিটি দেখেই বেশ ভয়ঙ্কর লাগছে৷ বতাই দেখেই বেশ টেনশনে ভুগছেন রুক্মিনী৷ তাঁর সেই পোস্টে অনেকে কমেন্টে লিখেছেন পুরুলিয়া এবং মেদিনীপুরে ভূমিকম্প হয়েছিল, সেটা রুক্মিনী ফিল করেছেন কিনা৷ অনেকে এও লিখেছেন যে এসি চালানোর, অপ্রয়োজনে বিদ্যুৎ ব্যবহারের জন্য গ্লোবাল ওয়ার্মিং হচ্ছে৷ আর সেই কারণে পৃথিবী ধ্বংশের দিকে এগিয়ে চলেছে৷ আপাতত নায়িকার হাত ফাঁকা। তাই প্রোডাকশনে হাত পাকাচ্ছেন অভিনেত্রীর। দেবের প্রযোজক সংস্থার আপকাপিং ছবি, ‘হইচই আনলিমিটেড’ এর পর্দার পেছনের কাজ সামলাছেন সুন্দরী। রুক্মিনীকে পাশে নিয়ে ‘কবীর’-এর ট্রেলার মুক্তির দিন দেব ঘোষণা করেন তাঁর আগামী ছবি ‘হইচই আনলিমিটেড’। সঙ্গে জানিয়ে দেন এবার পুজোয় বক্সঅফিস তাঁর। তাই শুরু থেকেই কোমর বেঁধে নেমে পড়েছেন প্রযোজক দেব-রুক্মিনী। শ্যুটিং শুরুর আগে থেকে শুরু হয়ে গিয়েছিল প্রমোশন। স্ক্রিপ্ট মিটিংয়ের একটি মজাদার ভিডিও পোস্ট করেছিলেন সোশ্যাল মিডিয়ায়।…

দুই বাংলায় নন্দিত অভিনেত্রী : শুভ জন্মদিন জয়া আহসান

আজ জয়া আহসানের জন্মদিন। জীবনের সুন্দর এই দিনটিতে বন্ধু-সহকর্মীদের শুভেচ্ছা ও ভালোবাসায় ভাসছেন জয়া। জয়াকে নিয়ে ফেসবুকে লিখছেন তার ভক্তরা। সে তালিকায় আছেন দুই বাংলার অনেক তারকারাও। তবে ২০১৬ সালের পর থেকে নিজের জন্মদিনে নিরব থাকেন জয়। কারণ ২০১৬ সালের ১ জুলাই ঢাকার গুলশানে ভয়াবহ জঙ্গি হামলায় প্রাণ গিয়েছিলো দেশি বিদেশি অনেক মানুষের। সেই দিনের ভয়াবহতাকে ভুলতে পারেন না জয়। ১ জুলাই এলে তাই নিজের জন্মদিন ম্লান হয়ে যায় তার কাছে। জয়া আহসানের জন্ম গোপালগঞ্জে। তার বাবা মুক্তিযোদ্ধা এ এস মাসউদ এবং মা রেহানা মাসউদ ছিলেন একজন শিক্ষিকা। তারা দুই বোন এক ভাই। অভিনয় শুরুর আগে জয়া নাচ ও গানের প্রতি আকৃষ্ট ছিলেন। শোবিজে জয়া আহসানের নানামুখী সাফল্যে সবচেয়ে উজ্জ্বল সিনেমার ক্যারিয়ার। সেই ২০০৪ সালে মোস্তফা সরয়ার ফারুকী পরিচালিত ‘ব্যাচেলর’ সিনেমার মধ্য দিয়ে সিনেমায় যাত্রা শুরু তার। দিনে দিনে ক্যারিয়ারে যোগ করেছেন অনেক সফল ও প্রশংসিত সিনেমা। তিনি প্রথম বাংলাদেশি ‘ফিল্ম ফেয়ার অ্যাওয়ার্ড’ পাওয়া অভিনেত্রী। দেশের হয়েও জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার জয় করেছেন জয়া আহসান। প্রথম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেন ২০১১ সালে নাসির উদ্দিন ইউসুফ পরিচালিত ‘গেরিলা’ চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য। এরপর ‘চোরাবালি’, ‘জিরো ডিগ্রি’ ও ‘দেবী’র জন্যও বাংলাদেশের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরষ্কার পেয়েছেন জয়া। বাংলাদেশের সিনেমা ছাড়াও কলকাতার বাংলা সিনেমায় জয়া বেশ জনপ্রিয়। ভারতীয় সিনেমার মধ্যে ‘আবর্ত’, ‘বিসর্জন’, ‘রাজকাহিনী’, ‘ঈগলের চোখ’, ‘ক্রিসক্রস’ ও ‘কণ্ঠ’ তার অভিনীত উল্লেখযোগ্য সিনেমা। মাহমুদ দিদার পরিচালিত ‘বিউটি সার্কাস’সহ জয়া অভিনীত বেশকয়েকটি সিনেমা মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে। অভিনেত্রী জয়া আহসানের জন্মদিন আজ। ১ লা জুলাই ১৯৭২ সালে জন্ম নেয়া এই গুনী অভিনেত্রী এপার ওপার দুই বাংলাতেই বেশ সমাদৃত।   যখন শোবিজে ম্লান হয়ে গেছেন তখন তিনি রূপ-লাবণ্য আর অভিনয়ের জৌলুসে মাতিয়ে চলেছেন দুই বাংলার সিনেমার দর্শক। জন্মদিনের শুভেচ্ছা বয়সকে জয় করা এই জয়াকে।

কি খেলে হিমোগ্লোবিন বাড়বে

রক্তকোষে লৌহসমৃদ্ধ একধরনের প্রোটিন হচ্ছে হিমোগ্লোবিন। এটি শরীরে অক্সিজেন পরিবহনে সাহায্য করে। সুস্থ জীবনযাপনে রক্তে হিমোগ্লোবিনের মাত্রা সঠিক থাকা প্রয়োজন। কিছু খাবার খেয়ে রক্তে হিমোগ্লোবিনের মান ঠিক রাখা যায়। ভারতের ফর্টিস হাসপাতালের চিকিৎসক মনোজ কে আহুজার মতে, রক্তে হিমোগ্লোবিনের মাত্রা কমে গেলে দুর্বলতা, ক্লান্তি, মাথাব্যথা, শ্বাসকষ্ট, ঝিম ধরা, ক্ষুধামান্দ্য ও দ্রুত হৃৎস্পন্দনের মতো সমস্যা দেখা যায়। যদি হিমোগ্লোবিনের মাত্রা অনেক কম হয়, তবে রক্তাল্পতা বা এর চেয়েও মারাত্মক সমস্যা দেখা দিতে পারে।   চিকিৎসক আহুজার মতে, ‘সবার লৌহের দরকার হয়। তবে নারীদের ঋতুচক্রের সময়, গর্ভাবস্থায়, শিশুদের বেড়ে ওঠার সময়, রোগ থেকে সেরে ওঠার মুহূর্তে লৌহের বেশি দরকার হয়। সম্প্রতি এনডিটিভির এক প্রতিবেদনে প্রাকৃতিক উপায়ে রক্তে হিমোগ্লোবিনের মাত্রা বাড়ানোর উপায় বর্ণনা করা হয়েছে। দেখে নিন কী খেলে হিমোগ্লোবিন বাড়বে।     লৌহযুক্ত খাবার শরীরে লৌহের ঘাটতি হিমোগ্লোবিন কমে যাওয়ার অন্যতম কারণ। হিমোগ্লোবিন উৎপাদনে লোহা গুরুত্বপূর্ণ একটি উপাদান। লৌহসমৃদ্ধ খাবারের মধ্যে রয়েছে মুরগির কলিজা, ঝিনুক, ডিম, আপেল, বেদানা, ডালিম, তরমুজ, কুমড়ার বিচি, খেজুর, জলপাই, কিশমিশ ইত্যাদি।     ভিটামিন সি ভিটামিন সি-এর অভাবে হিমোগ্লোবিন কমে যেতে পারে। তা ছাড়া ভিটামিন সি ছাড়া লোহা পুরোপুরিভাবে শোষণ হয় না। পেঁপে, কমলা, লেবু, স্ট্রবেরি, গোলমরিচ, সবুজ ফুলকপি (ব্রকোলি), আঙুর, টমেটো ইত্যাদিতে প্রচুর ভিটামিন সি থাকে।     ফলিক অ্যাসিড ফলিক অ্যাসিড একপ্রকার ভিটামিন বি কমপ্লেক্স। এটি লাল রক্তকণিকা তৈরিতে প্রয়োজনীয় উপাদান। সবুজ পাতাযুক্ত সবজি, কলিজা, ভাত, শিমের বিচি, বাদাম, কলা, সবুজ ফুলকপিতে অনেক ফলিক অ্যাসিড পাওয়া যায়।     বিট হিমোগ্লোবিন বাড়াতে বিটের রস খাওয়ার পরামর্শ দেন ডাক্তাররা। এতে রয়েছে প্রচুর আয়রন, ফলিক অ্যাসিড, ফাইবার ও পটাশিয়াম। এর পুষ্টিমান শরীরের লাল রক্তকণিকা বাড়ায়।     আপেল দিনে একটি করে আপেল খেয়ে রক্তে হিমোগ্লোবিনের মাত্রা ঠিক রাখতে পারেন। আয়রনের উৎস আপেলে আরও নানা প্রকার পুষ্টি উপাদান রয়েছে। প্রতিদিন খোসাসহ একটি আপেল খান। অথবা সমানুপাতে আপেল ও বিটের রস মেশাতে পারেন।   ডালিম আয়রন, ক্যালসিয়াম, শর্করা ও আঁশ (ফাইবার) সমৃদ্ধ ডালিম রক্তে হিমোগ্লোবিন বৃদ্ধি করে দেহে…
আনুষ্কা

মা হলেন বিরাট পত্নী ! আনুষ্কা এবং সন্তান দুজনই ভালো আছে

আজ ১১ জানুয়ারি ২০২১! খেলার জগতের শ্রেষ্ঠ তারকা বিরাট এবং অভিনয়ে পর্দা কাপিয়ে তোলা অভিনেত্রী আনুষ্কার ঘরে ফুটফুটে এক কন্যা সন্তান এসেছে। এই সুখবরটি বিরাট কোহলি নিজেই নেট দুনিয়ায় সম্প্রচার করেছেন। ক্রিকেট জগতের এই কিংবদন্তি সোশ্যাল মিডিয়ায় জানান , মা এবং সন্তান দুজনই ভালো আছে। বিরাট আরো লিখেছেন, কন্যাকে তিনি এবং আনুষ্কা আশীর্বাদ স্বরুপ পেয়েছেন। তিন জনের এই নতুজীবন শুরুর পূর্বে সকল ভক্ত ও শুভাকাঙ্খীদের কাছে আশীর্বাদ চেয়েছেন। যারা শুভকামনা জানিয়েছেন তাদের সকলকে তিনি ধন্যবাদ দিয়েছেন। ২০২০ সালের আগস্ট মাসে আনুষ্কার সোশ্যাল মিডিয়া থেকে জানা যায় যে, জানুয়ারি মাসেই তারা তিন জনে পরিণত হতে চলেছেন। সেই তথ্যই বাস্তবে রুপ নিয়ে কন্যা সন্তান এসে আলো করেছে তাদের জীবন। এই সুখবরে রীতিমত অনেকেই শুভেচ্ছা বার্তা পাঠাচ্ছেন বিরুষ্কা জুটিকে।
priyanka

লন্ডনে রূপচর্চা করতে গিয়ে পুলিশি কবলে প্রিয়াঙ্কা চোপড়া

‘টেক্সট ফর ইউ’ ছবির শুটিংয়ে গিয়ে বিরতি কাজে লাগিয়ে সেখানকার একটি স্যালোঁ তে রূপচর্চা করতে গিয়েছিলেন ইন্ডিয়ান এই অভিনেত্রী। তাতেই ঘটে বিপত্তি
kajol

কাজলের ভাইরাল হওয়া ছবি নিয়ে নেট দুনিয়ায় তোলপাড়!

লকডাউনের মধ্যে বাড়িতে থাকার জন্য কেউ তাঁকে চিনতে পারছেন না বলে মন্তব্য করেন কাজল নিজেই। অ'ভিনেত্রীর ওই মন্তব্যের পর থেকেই জো'র শোরগোল শুরু হয়ে যায়।